Home এক্সক্লুসিভ ছাত্রলীগ পাশে দাঁড়িয়েছে বলে বাঁচার স্বপ্ন দেখছি: কোলন ক্যান্সারে আক্রান্ত যুবক।।

ছাত্রলীগ পাশে দাঁড়িয়েছে বলে বাঁচার স্বপ্ন দেখছি: কোলন ক্যান্সারে আক্রান্ত যুবক।।

মো. আজহার উদ্দিন, স্টাফ রিপোর্টার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।।

কোলন ক্যান্সারে আক্রান্ত এক যুবকের চিকিৎসা জন্য আর্থিক সহযোগিতা ও চিকিৎসা করানো জন্য এগিয়ে গেলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শোভন ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এড. মাসুম বিল্লাহ্।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) সন্ধার দিকে কোলন ক্যান্সারে আক্রান্ত আবু সায়েদ(২৮) মুঠোফোনে জানান আজ ছাত্রলীগ আমার পাশে দাঁড়িয়েছে বলে আমি বাঁচার স্বপ্ন দেখছি ।

আবু সায়েদ জেলা শহরের পূর্ব মেড্ডা তিতাস পাড়া এলাকার মৃত আজগর আলীর দ্বিতীয় ছেলে। তারা চার-বোনের মধ্যে সে দ্বিতীয়। সে একজন ট্রাক চালক ছিল।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত তিনমাস আগে আবু সায়েদ কোলন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছিল। প্রতিদিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন সায়েদ। টাকার অভাবে ঠিকমতো তার চিকিৎসা হচ্ছে না। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে আরেকটি অপারেশন না করানো পারলে হয়ত আর বাঁচবে না আবু সায়েদকে।

অসহনীয় ব্যাথা ও কোলন ক্যান্সারের যন্ত্রণায় কিছুক্ষণ পরপর ছটফট করছে সায়েদ। সায়েদকে বাঁচার আকুতি তার মায়ের বুকফাটা আর্তচিৎকারে ভারী হচ্ছে আশপাশের পরিবেশ।

চিকিৎসক বলছেন, কোলন ক্যান্সারের চিকিৎসা অত্যন্ত ব্যয়বহুল। এই মুহূর্তে অর্থ যোগানের বিকল্প নেই। শিগগিরই ২টি কেমো থেরাপি দিয়ে আবার অপারেশন করাতে হবে সায়েদের। যার ব্যয় হবে দেড়লাখ টাকা। এখন পর্যন্ত ৬ লাখ টাকা ব্যয় করেও সায়েদকে সুস্থ করা যায়নি।

অন্যতম যোগাযোগ মাধ্যম ও সোস্যাল মিডিয়া ফেসবুকে ‘সায়েদকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন সবাই’ লেখালেখি দেখে জেলা ছাত্রলীগকর্মী মুহাম্মদ রাব্বি, শেখ মঞ্জুরে মওলা ফারহানী, আশরাফুল ইসলাম ইমন, সাব্বির রহমান, মো. ফাহিম, জুনায়েদ আহমেদ ও নাঈম মিয়াসহ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল আলম রবিনকে জানায়। সেই বিষয়টি নিয়ে রবিউল আলম রবিন ফেসবুক লাইভে আসে। সায়েদের চিকিৎসার জন্য সবাইকে এগিয়ে আসতে অনুরোধ করেন। যা চোখে পড়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শোভন ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এড. মাসুম বিল্লাহ্’র।

তখন শাহাদাৎ হোসেন শোভন উদ্যোগক্তাদের সাথে কথা বলে, আবু সায়েদের চিকিৎসার জন্য নগদ ৪০ হাজার টাকা পরিবারের হাতে তুলে দেন। তাছাড়াও শোভনের পরামর্শে ওই উদ্যোগক্তারা বিভিন্ন মাধ্যমে আরো ৫০হাজার টাকার ব্যবস্থা করেন।

গত ১০ জানুয়ারি আবু সায়েদকে দেখতে এবং তার হাতে অনুদানের টাকা তুলে দিতে শাহাদাৎ হোসেন শোভন ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এড. মাসুম বিল্লাহ্ আবু সায়েদের বাড়িতে যান।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শোভন বলেন, কলেজ ছাত্রলীগনেতা রবিউল আলম রবিনের ফেসবুক লাইভ থেকে আবু সায়েদের অসুস্থতার ব্যাপারে অবগত হয়। তারপর চিকিৎসার জন্য ৪০ হাজার টাকা আবু সায়েদের হাতে তুলে দিয়ে আসি। তাছাড়াও উদ্যোগক্তরাও আরো ৫০হাজার টাকা অনুদান ব্যবস্থা করেন। আবু সায়েদের চিকিৎসার জন্য আরোও দেড়লক্ষ টাকা প্রয়োজন। ছাত্রলীগের মাধ্যমে ৯০হাজার টাকা সংগ্রহ করা হয়েছে। বাকি টাকা সংগ্রহ করে আবু সায়েদের হাতে তুল দেওয়া হবে।

আবু সায়েদের চিকিৎসার জন্য আর্থিকভাবে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে সমাজের উচ্চবিত্ত ও সামর্থ্যবান সবাইকে অনুরোধ করেন এড. মাসুম বিল্লাহ্।

অনুদানের টাকা আবু সায়েদের হাতে তুলে দেওয়ার সময় আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রলীগ নেতা জিদনী ইসলাম, বিএম মারুফ, আমিনুল জুয়েল, রাসেল আহমেদ, জাকির হোসেন, আসাদুজ্জামান আসাদ, আসিফুল ইসলাম অন্তু, আকিব সরকার, রবিউল আলম রবিন, সাইফুল ইসলাম মুহিন, জসিম আহমেদ রবিন, সাইফুল ইসলাম মুন্না, ওবায়দুর রহমান বাবু, যুবায়ের মিয়া ও তানভির আহমেদ ইমন প্রমূহ।

তাছাড়া মাদার রাজিয়া ফাউন্ডেশনের সভাপতি আল-মুমিন চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মুনসুর চৌধুরীসহ জেলা ছাত্রলীগের অন্যান্য নেতাকর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here