শুক্রবার, ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ,৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
Mujib

/

এর সর্বশেষ সংবাদ

বিশ্বের জনসংখ্যা ৮০০ কোটি ছাড়ালো

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বিশ্বের জনসংখ্যা আটশ কোটির মাইলফলক স্পর্শ করলো মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর)। জাতিসংঘের প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ২০২৩ সাল নাগাদ ভারত জনসংখ্যার দিক থেকে চীনকে ছাড়িয়ে যাবে এবং বিশ্বের সর্বাধিক জনসংখ্যার দেশ হবে এটি।

জাতিসংঘ বলছে, ৭০০ কোটির মাইলফলক স্পর্শ করার মাত্র ১১ বছর পর বিশ্বের জনসংখ্যা আটশ কোটিতে পৌঁছালো। এরপর ২০৩০ সাল নাগাদ বিশ্বের জনসংখ্যা হবে ৮৫০ কোটি এবং ২০৫০ সালে পৌঁছাবে ৯৭০ কোটিতে। তাছাড়া ২০৮০ সালে এই জনসংখ্যা এক হাজার কোটির মাইলফলক অতিক্রম করবে।

তবে আগামীতে ৯০০ কোটিতে পৌঁছতে ১৫ বছর সময় লাগতে পারে বলছে, সংস্থাটি।

রকফেলার ইউনিভার্সিটির ল্যাবরেটরি অফ পপুলেশনের জোয়েল কোহেন এএফপিকে বলেন, পৃথিবী কত লোককে সমর্থন করতে পারে তার দুটি দিক রয়েছে: প্রাকৃতিক সীমা এবং মানুষের পছন্দ। আমাদের পছন্দের ফলে মানুষ প্রতি বছর গ্রহটির আরো জৈব সম্পদ আহরণ ও ভোগ করতে পারে, এতে অনেক বেশি জৈব সম্পদ যেমন বন এবং জমি গ্রাস করা হবে।

জীবাশ্ম জ্বালানির অত্যধিক ব্যবহার, উদাহরণস্বরূপ- আরও কার্বন ডাই অক্সাইড নির্গমনের দিকে পরিচালিত করে, যা বিশ্ব উষ্ণায়নের জন্য দায়ী।

বিশ্বের বর্তমান জনসংখ্যা ১৯৫০ সালের ২.৫ বিলিয়ন (আড়াই’শ কোটি) থেকে তিনগুণের চেয়ে বেশী বৃদ্ধি পেয়েছে।

জাতিসংঘের জনসংখ্যা তহবিলের রাচেল স্নো এএফপিকে বলেছেন, ১৯৬০ এর দশকের গোড়ার দিকে বিশ্বের জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার নাটকীয়ভাবে হ্রাস পেয়েছে।

বার্ষিক প্রবৃদ্ধি ১৯৬২ থেকে ১৯৬৫ সালের মধ্যে সর্বোচ্চ ২.১ শতাংশ থেকে ২০২০ সালে ১ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে। জাতিসংঘের প্রদর্শিত হিসাবে জন্মহার ক্রমাগত হ্রাসের কারণে ২০৫০ সাল নাগাদ এটি ০.৫ শতাংশের কাছাকাছি হতে পারে।

জাতিসংঘের অনুমিত হিসাবে বলা হয়, ২০৩০ সালে জনসংখ্যা প্রায় ৮.৫ বিলিয়ন, ২০৫০ সালে ৯.৭ বিলিয়ন এবং ২০৮০-এর দশকে প্রায় ১০.৪ বিলিয়নে বৃদ্ধি পাবে। অন্য দলগুলো অবশ্য ভিন্ন পরিসংখ্যান করেছে।

ইউএস-ভিত্তিক ইনস্টিটিউট ফর হেলথ মেট্রিক্স অ্যান্ড ইভালুয়েশন (আইএইচএমই) ২০২০ সালের একটি গবেষণায় অনুমান করেছে যে বিশ্বব্যাপী জনসংখ্যা ২০৬৪ সালের মধ্যে সর্বাধিক বৃদ্ধি পাবে, কখনও ১০ বিলিয়নে পৌঁছাবে না এবং ২১০০ সালের মধ্যে ৮.৮ বিলিয়নে নেমে আসবে।

ফরাসি ইনস্টিটিউট ফর ডেমোগ্রাফিক স্টাডিজ অনুসারে, ১০,০০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দে প্রায় ৬ মিলিয়ন থেকে বিশ্ব জনসংখ্যা ২,০০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দে ১০০ মিলিয়নে এবং তারপর খ্রিস্টপূর্ব প্রথম শতাব্দীতে ২৫০ মিলিয়নে উন্নীত হয়।
ব্লাক ডেথের ফলে ১৩০০ থেকে ১৪০০ সালের মধ্যে মানুষের জনসংখ্যা ৪২৯ থেকে ৩৭৪ মিলিয়নে নেমে আসে।

অন্যান্য ঘটনা, যেমন প্লেগ অফ জাস্টিনিয়ান, যা ৫৪১ থেকে ৭৬৭ সালে দুই শতাব্দী ধরে ভূমধ্যসাগরে আঘাত হানে এবং পশ্চিম ইউরোপে মধ্যযুগের প্রথম দিকের যুদ্ধগুলিও পৃথিবীতে মানুষের সংখ্যায় সাময়িক হ্রাস ঘটায়।
১৯ শতক থেকে জনসংখ্যা বিস্ফোরণ হতে শুরু করে, মূলত আধুনিক ওষুধের বিকাশ এবং কৃষির শিল্পায়নের কারণে, যা বিশ্বব্যাপী খাদ্য সরবরাহকে বাড়িয়ে তোলে।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on tumblr
Tumblr
Share on telegram
Telegram

বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

Leave a Comment

Your email address will not be published.

যায়যায়কাল এর সর্বশেষ সংবাদ