বৃহস্পতিবার, ৩রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ,১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
Mujib

/ , , ,

চট্টগ্রামে অবদান রাখছে মা ও শিশু হাসপাতাল: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

কেফায়েতুল্লাহ কায়সার, চট্টগ্রাম : নগরীর প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল পরিদর্শন ও হাসপাতালের ১০০ শয্যা বিশিষ্ট সম্প্রসারিত নবজাতক ওয়ার্ডের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন।

শুক্রবার বিকালে হাসপাতালের লেকচার গ্যালারীতে কার্যনির্বাহী কমিটির ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট সৈয়দ মোহাম্মদ মোরশেদ হোসেন এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. সাহেনা আক্তার, হাসপাতালের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও স্বাচিব কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ডা. নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও হাসপাতালের কার্যনির্বাহী কমিটির জেনারেল সেক্রেটারি মোহাম্মদ রেজাউল করিম আজাদ।

এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রাম আমার অত্যন্ত প্রিয় একটি জায়গা। আমি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজেরই একজন সাবেক ছাত্র। তাই চট্টগ্রামের প্রতি আমার অনেক দায়বদ্ধতাও রয়েছে। এই হাসপাতালে আজ থেকে প্রায় ৪০ বছর আগে আমি একবার আসি প্রফেসর ফজলুল করিমের সাথে। তিনি ছিলেন এই হাসপাতালের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা। তখন শিশু হাসপাতাল ছিল অত্যন্ত ছোট্ট পরিসরে। আজ সেই শিশু হাসপাতাল দেখে আমি সত্যিই অভিভূত। এই হাসপাতালের এনআইসিইউ, শিশু আইসিইউ, এডাল্ট আইসিইউ, সিসিইউ, ক্যান্সার বিভাগের চিকিৎসা সেবা দেখে আমি অনেক খুশি হয়েছি। অনেক সরকারী হাসপাতালেও এ-ধরনের বিশেষায়িত চিকিৎসা সেবা নাই। বেসরকারী পর্যায়ে চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল চট্টগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে। আমরা চিকিৎসা সেবার মান উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি। আমি প্রতিনিয়ত দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ঘুরে বেড়াচ্ছি এবং প্রান্তিক পর্যায়ে চিকিৎসা সেবার উন্নয়নের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। প্রান্তিক পর্যায়ে চিকিৎসা সেবার উন্নয়ন হলে মানুষকে চিকিৎসা সেবার জন্য ব্যাপক হারে আর শহরে আসতে হবেনা। আমাদেরকে চিকিৎসা সেবার গুণগত মান উন্নয়ন, দক্ষ ও মানসম্পন্ন চিকিৎসক তৈরি করতে হবে। আমার বা সরকারের একার পক্ষে সবকিছু করা সম্ভব নয়। আপনাদের সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন। তিনি চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালের উন্নয়নে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

বিশেষ অতিথি প্রফেসর ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেন, মা ও শিশু হাসপাতাল বাংলাদেশে বেসরকারী পর্যায়ে চিকিৎসা সেবার মান উন্নয়নে সরকারের পাশাপাশি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। এই হাসপাতালের চিকিৎসা শিক্ষা ও চিকিৎসা সেবার অনেক সুনাম রয়েছে। বিশেষ করে বিশেষায়িত চিকিৎসা সেবায় মা ও শিশু হাসপাতাল অনেক এগিয়ে রয়েছে। তিনি আরো বলেন, আমি অনেকবার এই হাসপাতালে এসেছি এবং হাসপাতালের সার্বিক বিষয়ে অবগত আছি। হাসপাতালের সার্বিক উন্নয়নে সরকারের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতার জন্য তিনিও আশ্বাস দেন।

এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হাসপাতালের ক্যান্সার বিভাগ, এডাল্ট আইসিইউ, সিসিইউ, শিশু আইসিইউ ও বিশেষায়িত শিশু বিকাশ কেন্দ্র পরিদর্শন করেন এবং হাসপাতালের বিশেষায়িত সেবার ভুয়সী প্রশংসা করেন।

অনুষ্ঠানের সভাপতি সৈয়দ মোহাম্মদ মোরশেদ হোসেন প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিকে হাসপাতাল পরিদর্শনে আসার জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (হাসপাতাল) ডা. আবু হুসাইন মোহাম্মদ মনিরুল আহসান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশাসন) ডা. মো. হারুনুর রশিদ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. তসলিম উদ্দিন, চট্টগ্রামের বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. ইফতেখার আহমেদ, স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পিএস (উপ-সচিব) কমল কুমার বিশ্বাস, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক (সমন্বয়) ডা. আবু সৈয়দ মোহাম্মদ ইমতিয়াজ হোসাইন, চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. মো. ইলিয়াস, চট্টগ্রাম কিডনী ফাউন্ডেশনের সভাপতি ডা. মইনুল ইসলাম মাহমুদ, হাসপাতালের কার্যনির্বাহী কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট আবদুল মান্নান রানা, প্রকৌশলী মো. জাবেদ আবছার চৌধুরী, ডা. পারভেজ ইকবাল শরীফ, জয়েন্ট জেনারেল সেক্রেটারী সৈয়দ মো. আজিজ নাজিম উদ্দিন, ট্রেজারার অধ্যক্ষ ড. লায়ন মোহাম্মদ সানাউল্লাহ, জয়েন্ট ট্রেজারার এস এম কুতুব উদ্দিন, অর্গানাইজিং সেক্রেটারী মোহাম্মদ সাগির, স্পোর্টস এন্ড কালচারাল সেক্রেটারী মো. আহসান উল্লাহ, ডোনার মেম্বার মো. শহীদ উল্লাহ, মেম্বার প্রফেসর ডা. কামরুন নেসা (রুনা), প্রফেসর ড. মোঃ জাহিদ হোসেন শরীফ, আলহাজ¦ মো. হারুন ইউসুফ, এ এস এম জাফর, স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাফরুল হায়দার চৌধুরী সবুজ, মেডিকেল কলেজের উপদেষ্টা প্রফেসর এ এস এম মোস্তাক আহমেদ, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর অসীম কুমার বড়ুয়া, হাসাতালের পরিচালক (প্রশাসন) ডা. মো. নূরুল হক, প্রফেসর ডা. অলক নন্দী, ক্যান্সার ইনষ্টিটিউটের পরিচালক ডা. শেফাতুজ্জাহান, উপ-পরিচালক (প্রশাসন) মোহাম্মদ মোশাররফ হোসাইন, উপ-পরিচালক (মেডিকেল এ্যাফেয়ার্স) ডা. এ কে এম আশরাফুল করিম, উপ-পরিচালক (ফিন্যান্স) মনজুরুল আলম চৌধুরী, উপ-পরিচালক (প্রশাসন, আইসিএইচ) ডা. মো. আবু সৈয়দ চৌধুরী প্রমুখ।

এছাড়া হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজের শিক্ষক-শিক্ষিকা, নার্সিং ইনষ্টিটিউট ও নার্সিং কলেজের শিক্ষক-শিক্ষিকা, ডাক্তার, নার্স, ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মকর্তা, কর্মচারীগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on tumblr
Tumblr
Share on telegram
Telegram

, , , বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

যায়যায়কাল এর সর্বশেষ সংবাদ