বুধবার, ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ,২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
Mujib

/ ,

, এর সর্বশেষ সংবাদ

গণতান্ত্রিক সংস্কার পার্টি আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক : মতভিন্নতার কারণে বিএনপির সাবেক মহাসচিব কে এম ওবায়দুর রহমানের স্ত্রী অধ্যাপক শাহেদা ওবায়েদকে বাদ দিয়ে ২১ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেছেন গণতান্ত্রিক সংস্কার পার্টি বা ডেমোক্রেটিক রিফর্ম পার্টি (ডিআরপি)।

শনিবার (১১ মে) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির নতুন নির্বাহী আহ্বায়ক মেজর (অব.) আমীন আহমেদ আফসারী এই ঘোষণা দেন।

তিনি বলেন, শাহেদা ওবায়েদ আমাদের দলের ১০ জন আহ্বায়কের মধ্যে একজন ছিলেন। আমরা যখন এই জাতীয় প্রেসক্লাবে (গত ২ ফেব্রুয়ারি) এই দলের নাম ঘোষণা করি সেখানে তিনি একটা বক্তব্য দিয়েছিলেন। দেশে পরিবারতন্ত্র চলছে, বাংলাদেশে আমিত্ব চলছে…।

আমীন আহমেদ আফসারী আরও বলেন, তিনি (শাহেদা ওবায়েদ) এখন আমাদের দলের থেকে বেরিয়ে গিয়ে একা আহ্বায়ক হতে চান… সকল কিছু উনার নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। এজন্য আমরা উনাকে দলে রাখতে পারি নাই। উনি এখন আমাদের বর্তমান দলের আর কেউ নন।

এদিকে মেজর (অব.) আমীন আহমেদ আফসারীকে প্রধান করে ২১ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি এবং পাঁচ সদস্যের উপদেষ্টা কমিটির নাম ঘোষণা করেছে গণতান্ত্রিক সংস্কার পার্টি বা ডেমোক্রেটিক রিফর্ম পার্টি (ডিআরপি)।

নির্বাহী আহ্বায়কের নেতৃত্বে আহ্বায়করা হলেন- শামসুল আলম, মিজানুর রহমান, আফাজুল হক। আর ভারপ্রাপ্ত প্রধান সমন্বয়ক হচ্ছেন মেহবুব চৌধুরী, নির্বাহী সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ।

সমন্বয়করা হলেন- লিয়াকত আলী, খোরশেদ আলম, মোহাম্মদ আলী, রাশেদ বাবু, হাবিবুর রহমান, আব্দুর রহমান, মশিউর রহমান, জুলফিকার আলী, মো. জয়নাল, ইব্রাহিম খলিল, মো. হামিদ, রাদিয়া চৌধুরী ফ্লোরিডা, আমিরুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান ও মোকাদ্দেছ হোসেন।

পাঁচ উপদেষ্টা হলেন- জাকের আহমেদ, জহুরুল ইসলাম, দেলোয়ার হোসেন ও দেলোয়ার হোসেন পাটুয়ারি ও সাব্বির।

গত ২ মার্চ জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন হলে রাজনৈতিক দলের নেতৃত্বে ‘পারিবারিক ক্রম ও দলীয়করণের বিরুদ্ধে’ অবস্থানের কথা জানিয়ে ‘গণতন্ত্র সংস্কারে’ নতুন দল গঠনের ঘোষণা দিয়েছিলেন বিএনপির সাবেক মহাসচিব কে এম ওবায়দুর রহমানের স্ত্রী শাহেদা ওবায়েদ। তিনি বিএনপির শাসনামলে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ছিলেন।

শনিবার সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকরা শাহেদা ওবায়েদের বিষয়ে জানতে চাইলে নতুন নির্বাহী আহ্বায়ক আফসারী বলেন, উনি এখন আমেরিকাতে গিয়ে দল ঘোষণা করেছেন, ঘোষণা করতেই পারেন…. আমরাও দল ঘোষণা করেছি। দল ঘোষণা করার অধিকার উনার আছে। উনি একটা শব্দ পরিবর্তন করেছে গণতান্ত্রিক সংস্কার পার্টির জায়গায় গণতান্ত্রিক রাইটস পার্টি বা গণতান্ত্রিক অধিকার পার্টি।

তিনি আর বলেন, আমরা শুনলাম, উনি নির্বাচন কমিশনে আবেদন করেছেন। আমরা তো উনার মতো হোমোজিক্যালী কাজ করবো না। উনি যেহেতু আমাদেরকে ছেড়ে গেছেন তখন বিয়ে-সাদীও হয়নি… আলাপ হচ্ছে দল করব। বিয়ের আগে ডিভোর্স…এটা আপনাদেরকে বুঝতে হবে।

আফসারী জানান, তার দল নির্বাচনে কমিশনে নিবন্ধনের জন্য এখনো আবেদন করে নাই। তিনি বলেন, ‘আমরা ক্রোনোলজিক্যালী যাচ্ছি। উনি(শাহেদা ওবায়েদ) আমেরিকা থেকে আবেদন করে ফেলেছেন…. করুক।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনই সব নয়। এই নির্বাচন কমিশন ঠিক করতে হলে গ্রাসরুট লেভেলে দল তৈরি করতে হবে, জনগণকে দাঁড়াতে হবে। আমরা নির্বাচন কমিশনের গোলাম নই। বরং নির্বাচন কমিশন আমাদের গোলাম… জনগণের গোলাম। আমরা বড় বড় লোক আনি নাই, আমরা সাধারণ মানুষকে নিয়ে দল করতে চাই… এখানে যারা আছেন তারা সাধারণ।

তবে অধ্যাপক শাহেদা ওবায়েদ বলেন, আমি আমেরিকায় নই, ঢাকাতে আছি। আমার সঙ্গে উনার কোনো সম্পর্কই নেই। আমাদের দল আলাদা। আমার দলের নাম গণতান্ত্রিক অধিকার পার্টি। আমি অতীতে কোনো রাজনৈতিক দল করিনি। ফলে এটি আমার নতুন একটি রাজনৈতিক দল। আমরা ইতোমধ্যে ইলেকশন কমিশনেও আবেদন করেছি।

তিনি আরও বলেন, আজকে যিনি আমার সম্পর্কে বলছেন, তিনি কি? তিনি আগে গণফোরাম করেছেন, গণঅধিকার পরিষদ করেছেন… খোঁজ নিয়ে দেখেন সবখানে ধিকৃত হয়েছেন। আমি কারো সম্পর্কে কিছু বলতে চাই না। আমার সঙ্গে উনার কোনো সস্পর্ক নেই। আমার দল আলাদা, আমার দর্শন আলাদা, আমার লক্ষ্য আলাদা, আমার চিন্তা আলাদা। আমরা মানুষের কল্যাণের জন্য কাজ করতে চাই।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on tumblr
Tumblr
Share on telegram
Telegram

, বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *