বৃহস্পতিবার, ৩রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ,১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
Mujib

/ , ,

শেরপুরে নার্গিস হত্যা মামলার আসামি চট্টগ্রামে গ্রেফতার

এ এম ওয়াদুদ, শেরপুর : শেরপুর জেলার সদর উপজেলার লছমনপুর ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর দড়িপাড়া গ্রামের মৃত নওশের আলীর বসত ঘরে টাকা চুরি করতে গিয়ে তার বিধবা স্ত্রী নার্গিস বেগমকে হত্যা করা হয়। ওই হত্যা মামলার একমাত্র পলাতক আসামি আলিমুল ইসলাম (২২)-কে বুধবার দুপুর ২টার দিকে চট্টগ্রাম জেলার রাঙ্গুনীয়া মডেল থানা এলাকা থেকে শেরপুর সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) খন্দকার সালেহ আবু নাঈম, এসআই মোহাম্মদ আশিকুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্সসহ গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতারকৃত আলিমুল ইসলাম সদর উপজেলার কৃষ্ণপুর গ্রামের মো. সামিদুল হকের ছেলে এবং মৃত নার্গিস বেগম একই এলাকার মৃত নওশের আলীর বিধবা স্ত্রী।

এ ব্যাপারে শেরপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) মো. খোরশেদ আলম (পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি প্রাপ্ত) এর সভাপতিত্বে লোমহর্ষক বিধবা নার্গিস বেগম হত্যাকাণ্ড ও পরবর্তীতে হত্যার সাথে জড়িত আসামিকে গ্রেফতারের বিষয়ে এক প্রেস ব্রিফিং করেছেন।


এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন, শেরপুর সদর উপজেলার কৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত নওশের আলীর ছেলে মো. রাকিব হোসেন গত ২৭ জুন ব্র্যাক ব্যাংক শেরপুর শাখা থেকে নগদ ২ লাখ ৪০ হাজার টাকা উত্তোলন করে তার বশত ঘরের ট্রাংকে রেখে দেয়। এদিকে ওই বাড়িতে টাকা রাখার ঘটনাটি একই গ্রামের প্রতিবেশী সামিদুল হকের মাদকসেবী ছেলে মো. আলিমুল জানতে পারেন ফাঁকা বাড়িতে বিধবা নার্গিস বেগম একা রয়েছেন। এ সুযোগে সে ওই রাতেই টাকা চুরি করতে যায়।

এদিকে ঘরের দরজার তালা ভাঙ্গার শব্দ পেয়ে নার্গিস বেগম ঘুম থেকে জেগে উঠেন। পরে সে টর্চের আলোতে চোর আলিমুলকে দেখে চিনে ফেলার পর সে নার্গিস বেগমকে ধারালো ছুরি দিয়ে পেটে আঘাত করে। পরে তার চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে মাদকসেবী আলিমুল ইসলাম ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরে আহত নার্গিস বেগমকে উদ্ধার করে প্রথমে শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় শেরপুর সদর থানায় গত ৩০ জুন আলিমুল ইসলামকে একমাত্র আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়।

ঘটনার পর থেকেইে আসামী আত্মগোপন করতে দেশের বিভিন্ন স্থানে অবস্থান করা কালে শেরপুর সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) খন্দকার আবু সালেহ নাঈম, এসআই মোহাম্মদ আশিকুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্সসহ চট্টগ্রাম জেলার রাঙ্গুনীয়া মডেল থানা এলাকা থেকে বুধবার দুপুরে গ্রেফতার করে শেরপুর নিয়ে আসে। ধৃত মাদকসেবী পুলিশের কাছে এক স্বীকারোক্তিতে জানিয়েছে সে টাকা চুরি করতেই ওই বাড়িতে যায় এবং তাকে চিনে ফেলায় সে ছুরিকাঘাত করে নার্গিস বেগমকে হত্যা করে।

প্রেস ব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. সাইদুর রহমান, সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. এমদাদুল হক, ডিআইও-১ মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলমসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on tumblr
Tumblr
Share on telegram
Telegram

, , বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

যায়যায়কাল এর সর্বশেষ সংবাদ